Full width home advertisement

বাছাই খবর

প্রযুক্তি পরামর্শ

অ্যাপস

Post Page Advertisement [Top]

লিটনের বিতর্কিত আউট নিয়ে যা বললেন মাশরাফি

লিটনের বিতর্কিত আউট নিয়ে যা বললেন মাশরাফি
সূচনাটা হয়েছিল ফাইনালের মতোই। লিটন-মিরাজের উদ্বোধনী জুটিতে এলো ১২০ রান। এরপর হঠাৎ করেই ছন্দপতন। বিনা উইকেটে ১২০ রান করা বাংলাদেশ ৩১ রান তুলতেই হারায় ৫ উইকেট। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট পড়লেও অপর প্রান্ত দৃঢ়তার সঙ্গে আগলে রেখেছিলেন সেঞ্চুরিয়ান লিটন কুমার দাস। বিপর্যয়ের মধ্যেও সৌম্য সরকারকে নিয়ে দলকে এগিয়ে নিচ্ছিলেন।   
ষষ্ঠ উইকেটে দুজন মিলে গড়েন ৩৭ রানের জুটি। কিন্তু ইনিংসের ৪১তম ওভারে বিতর্কিত স্টাম্পিংয়ের ফাঁদে পড়ে সাজঘরে ফেরেন ১২১ রান করা লিটন। যে আউট নিয়ে ম্যাচ শেষ হওয়ার আগেই শুরু হয়েছে সমোলচনার ঝড়। বেনিফিট অব ডাউট ব্যাটসম্যানের পক্ষে থাকলেও লিটনকে আউট ঘোষণা করেন অস্ট্রেলিয়ার আম্পায়ার রড টাকার।
টেলিভিশন রিপ্লেতে যখন স্টাম্পিংয়ের মুহূর্তটি দেখানো হচ্ছিল, তখন সবাই ভেবেছিলেন আউট হননি লিটন। সবার মতোই অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার কাছেও মনে হয়েছিল, হয়তো আউট ছিলেন না লিটন।
ইনিংসের ৪১তম ওভারের ঘটনা। কুলদীপ যাদবের প্রথম পাঁচ বল থেকে ১০ রান তুলে নেন লিটন দাস। কিন্তু শেষ বলটি পা বাড়িয়ে খেলতে গিয়েও ব্যাটে-বলে সংযোগ হয়নি। বল চলে যায় উইকেটের পেছনে মহেন্দ্র সিং ধোনির হাতে। আর লিটনের পেছনের পা বের হয়ে আসার সুযোগ কাজে লাগিয়ে দ্রুত বেলস ফেলে দেন ধোনি।
ভারতের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আপিল করা হয় থার্ড আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের জন্য। কিন্তু সব বিশ্লেষণেই দেখা যায়, স্টাম্প ভাঙার আগেই লিটনের পা লাইন স্পর্শ করে। এমনকি তার পা মাটিতেই ছিল। টেলিভিশনের ধারাভাষ্যে বারবার মুহূর্তটিকে ক্লোজ বলা হচ্ছিল। বলা হচ্ছিল, বেনিফিট অব ডাউট, ক্রিকেটীয় আইনে যেটা সবসময় ব্যাটসম্যানের পক্ষেই যায়।
লিটন বেনিফিট অব ডাউট পেতে পারেন কি না, এ নিয়ে অবশ্য কোনো মন্তব্য করেননি মাশরাফি। বরং ম্যাচ শেষে লিটনের প্রশ্নবিদ্ধ আউট নিয়ে কিছুটা রয়ে-সয়ে মন্তব্য করেন তিনি, ‘এটা আসলে বলা কঠিন। আমাদের কাছে একসময় মনে হচ্ছিল আউট না বা এরকম। কিন্তু থার্ড আম্পায়ারই ভালো বলতে পারবে, কারণ সিদ্ধান্তটা তো উনারই ছিল। এটা নিয়ে হয়তো পরে আলোচনা হবে।’

No comments:

Post a Comment

Bottom Ad [Post Page]