Full width home advertisement

বাছাই খবর

প্রযুক্তি পরামর্শ

অ্যাপস

Post Page Advertisement [Top]

রাবির ভর্তিতে কোটা থাকবে না : উপাচার্য

রাবির ভর্তিতে কোটা থাকবে না : উপাচার্য
আগামী বছর (২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষ) থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তিতে কোটার আসন থাকবে না বলে জানিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান। সোমবার (২২ অক্টোবর) সকালে২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার হল পরিদর্শন শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান তিনি।
সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে উপাচার্য বলেন, ‘সরকার যখন সকল কিছুতে কোটা বাতিল করেছে, তখন আগামী বছর থেকে আমাদেরও কোটা থাকবে না। সাধারণত আমরা যেটা চিন্তা করি, আমরা ভবিষ্যতেও চিন্তা করে দেখব এটা থাকবে কিনা। সরকার ইতোমধ্যে হয়ত কিছু কিছু যেমন, আন্ডার প্রিভিলেজ (শারীরিক অক্ষম), প্রতিবন্ধী যারা আছে, ট্রাইবাল পিপুল যারা আছে তাদের জন্য ১/২ শতাংশ হয়ত সরকার সেটা বিবেচনা করবে। এ ধরনের কোটা থাকতে পারে।’
সরকার সকল ক্ষেত্রে কোটা বাতিল করেছে সেজন্য এখানেও কোটা রাখা হবে না বলেও মন্তব্য করেন উপাচার্য। তবে, পোষ্য কোটা থাকবে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তর সুস্পষ্টভাবে দিতে পারেননি তিনি।
এ বিষয়ে অধ্যাপক সোবহান বলেন, ‘এখানে যেটা ওয়ার্ড কোটা হিসাবে আছে যেটা কর্মকর্তা, কর্মচারী যারা আছেন তাদের জন্য, এটা কিন্তু অতিরিক্ত। এ সিটগুলো (আসন) ছাত্রদের সিটের বাইরে। তারপরেও তাদের কিন্তু একটা যোগ্যতা নির্ধারণ করা আছে। সেটি কোয়ালিফাই (উত্তীর্ণ) না করে ভর্তি হতে পারবে না। এটা একেবারে রিলিফ (দান) দেয়ার মতো না। এখানে ঢালাওভাবে ভর্তি হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। এ বিষয়টি বিবেচনায় থাকবে।’
এছাড়াও উপাচার্য আগামী বছরের ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের নানা সিদ্ধান্তের কথাও জানান। তিনি বলেন, ‘আগামী বছর থেকে এখানে দ্বিতীয়বার পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ থাকছে না। কেবলমাত্র তারাই পরীক্ষা দিতে পারবে যারা ওই বছর উচ্চমাধ্যমিকে পাস করবে। ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ১০০ নম্বরের। সেখানে লিখিত ৫০ মার্কস এবং নৈর্ব্যক্তিক ৫০ মার্কসের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। 
পরীক্ষায় নির্দিষ্ট সংখ্যক শিক্ষার্থীকে অংশের সুযোগ দেয়া হবে। সেই সাথে আগামীতে দু’দিনের বদলে একদিনে সকল ইউনিটের পরীক্ষা শেষ করার বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করছে প্রশাসন বলে জানান তিনি।
প্রেস ব্রিফিংয়ে উপউপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা, চোধুরী মো. জাকারিয়া, ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানু, প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান, জনসংযোগ দপ্তর প্রশাসক অধ্যাপক প্রভাষ কুমার কর্মকারসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।
সুত্রঃ odhikar

No comments:

Post a Comment

Bottom Ad [Post Page]