Full width home advertisement

বাছাই খবর

প্রযুক্তি পরামর্শ

অ্যাপস

Post Page Advertisement [Top]

১০ বছরের জেল হচ্ছে রোনালদোর!

১০ বছরের জেল হচ্ছে রোনালদোর!
ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনেছেন ক্যাথরিন মায়োরগা। সাবেক এ মার্কিন মডেল বর্তমানে শিক্ষকতা করছেন। তার অভিযোগ, ২০০৯ সালে লাস ভেগাসের এক হোটেলে তাকে ধর্ষণ করেন পর্তুগিজ যুবরাজ। আর এ অভিযোগ প্রমাণিত হলে সিআর সেভেনের ১০ বছরের জেল হবে।
সাম্প্রতিক সময়ে সর্বপ্রথম এ খবর প্রকাশ্যে নিয়ে এসেছে জার্মান পত্রিকা ডার স্পাইগেল। এরপরই তা নিয়ে ফুটবল বিশ্বে হৈচৈ পড়ে গেছে। অবশ্য ঘটনা প্রকাশের পরপরই তা অস্বীকার করেন রোনালদো। সঙ্গে সঙ্গে পত্রিকাটির বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দেন তিনি।
তবে তাতে মুখ বুজে বসে থাকেনি ডার স্পাইগেল। এ নিয়ে একের পর এক আপডেট দিয়ে যাচ্ছে সংবাদমাধ্যমটি। সবশেষ খবর, অভিযোগ প্রমাণিত হলে হালের মহাতারকার ১০ বছরের জেল হবে।
আরেকটি সংবাদমাধ্যমের খবর, বেশ কটি নামীদামি বহুজাতিক কোম্পানির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ রোনালদো। সেসব কোম্পানির পণ্যদূত হিসেবে কাজ করছেন তিনি। অভিযোগ প্রতীয়মান হলে ১ বছরে ৩৫ মিলিয়ন ব্রিটিশ পাউন্ড খোয়াবেন এ ফুটবলার।
ডার স্পাইগেল জানিয়েছে, ২০০৯ সালে মায়োরগাকে ধর্ষণ করেন রোনালদো। ওই সময় ব্যাপক পরিমাণ অর্থ দিয়ে ধর্ষিতাকে বিষয়টি গোপন রাখার কথা বলেন তিনি। তাতে রাজি হয়ে যান মার্কিন ললনা। অধিকিন্তু ভয়ে মুখ খুলতে পারেননি তিনি। কিন্তু এখন পায়ের নিচে মাটি পাওয়ায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন।
ঘটনার সময়ই এ নিয়ে অবহিত ছিল লাস ভেগাস পুলিশ। আপস হয়ে যাওয়ায় তা নিয়ে মাথা ঘামায়নি তারা। বিষয়টি নতুনভাবে মাথাচাড়া দিয়ে ওঠায় ফের মামলাটির তদন্তে নেমেছে পুলিশ। তাদের পর্যবেক্ষণে সত্যতা প্রমাণিত হলে ১০ বছরের জেল হবে রোনালদোর।
এক বিবৃতিতে পুলিশ জানিয়েছে, মামলা ওপেন হওয়ার ২০ দিনের মধ্যে রোনালদোকে আনুষ্ঠানিকভাবে জবাব দিতে বলা হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে হাজির না হলে অন্য ব্যবস্থা নেয়া হবে। এরই মধ্যে রোনালদোর বিরুদ্ধে একই অভিযোগ এনেছেন আরেক নারী। তার অভিযোগ, ২০০৫ সালে তাকে ধর্ষণ করেন পর্তুগিজ সুপারস্টার।

No comments:

Post a Comment

Bottom Ad [Post Page]